সেলুলয়েড

২২০ কেজির আদনান সামি বর্তমানে ৬৫ কেজি

পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ভারতীয় সঙ্গীত শিল্পী আদনান সামি। সম্প্রতি পরিবার নিয়ে মালদ্বীপ বেড়াতে যান।

ভ্রমণের বিভিন্ন মুহূর্তের ছবি অনলাইনে শেয়ার করেন। আর সেসব ছবি দেখে চোখ ছানাবড়া হয়ে যায় সামি ভক্তদের।

এক সময় ২২০ কেজি ওজন ছিল তার। নিজের গানের জন্য আলোচনায় থাকতেন সামি। ২০০৬ সালে এতো ভারী শরীর নিয়ে আদনান ছিলেন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

কারণ ডাক্তাররা জানিয়ে দিয়েছিলেন অতিরিক্ত ওজন ঝরাতে না পারলে বেঁচে থাকা তার জন্য কঠিন। তারপর ওজন কমাতে কঠোর পরিশ্রম শুরু করেন জনপ্রিয় এই সঙ্গীত শিল্পী।

বর্তমানের আদনান সামি

কঠিন ডায়েট ও শরীর চর্চার মাধ্যমে ১৫৫ কেজি ওজনকে চির বিদায় জানান। আমেরিকার টেক্সাসে গিয়ে এক পুষ্টিবিদের পরামর্শ গ্রহণ করে জীবন পরিচালনা করতে থাকেন তিনি।

পুষ্টিবিদের তত্ত্বাবধায়নে ও পরামর্শে কার্বোহাইড্রেট খাওয়া কমাতে থাকেন। আর ভরসা রাখেন প্রোটিনের ওপর।

প্রোটিনে নির্ভরশীলতা দারুণ ফল বয়ে আনে তার শরীরের জন্য।

ভারী শরীরের কারণে প্রথমে শরীর চর্চা করা অনেকটাই অসম্ভব হয় পড়ে। শরীর এতোটাই মেদবহুল ছিল সামি নিচু হতে পারতেন না।

মালদ্বীপে কন্যার সাথে আদনান সামি

এর কারণে খাদ্যাভ্যাস নিয়ন্ত্রণে বেশি জোর দেন সামি। সাদা ভাত, রুটি, চিনি ও জাঙ্ক ফুড খাওয়া একেবারেই বন্ধ করে কঠিন নিয়ম মানতে থাকেন।

বর্তমানে আদনানের মালদ্বীপ ভ্রমণের ওজন ঝরানোর পর ছবি দেখে চোখ কপালে উঠেছে নেটিজেনদের।

এতোটা শারীরিক পরিবর্তন কেউ বিশ্বাসই করতে পারছেন না।

আদনান সামি ২০০০ সালে ‘মুজকো ভি তু লিফ্ট কারা দে’ গানের মধ্য দিয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তার খ্যাতি বিশ্বজুড়েই। ভক্ত- অনুরাগীরা সবাই জানেন যে, আদনান সামি এক সময় অতিরিক্ত ওজনে ভুগছিলেন।

মালদ্বীপে স্ত্রী ও কন্যার সাথে খাবারের টেবিলে আদনান সামি

মানসিক ও শারীরিক বিভিন্ন সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। অবশেষে ওজন কমানোর জন্য মনস্থির করেন।

আর এখন তিনি এতোটাই ফিট যে অন্যরা তাকে দেখলে অনুপ্রাণীত হন। নিজেকে আমূল পরিবর্তন করেছেন এই শিল্পী।

‘ওজন কমানোর কাজটি ছিল ৮০ ভাগ মনস্তাত্ত্বিক ও মাত্র ২০ ভাগ শারীরিক বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক সাক্ষাৎকারে জানান আদনান সামি।’

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক সাক্ষাৎকারে সামি জানান, ‘দৃঢ় সংকল্প ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে মাত্র ১৬ মাসে প্রায় ১৫৫ কেজি ওজন কমাতে সক্ষম হয়েছি।’’

তাকে একটি কম-ক্যালোরিযুক্ত ডায়েট চার্ট দেওয়া হয়েছিল। যেখানে ছিল- সাদা ভাত, রুটি ও শাকসবজি। অস্বাস্থ্যকর জাঙ্ক ফুড একেবারেই খাওয়া বন্ধ করেন আদনান।

শুধু সালাদ, মাছ ও সেদ্ধ ডাল খেয়ে থাকতেন তিনি। দিন শুরু করতেন এক কাপ কম চিনি মেশানো চা দিয়ে। দুপুরের খাবারে শাকসবজি, সালাদ ও মাছ খেতেন সামি।

রাতের খাবারে তিনি খেতেন ভাত বা রুটি ছাড়াই সাধারণ সেদ্ধ ডাল বা মুরগির মাংস। স্ন্যাকসের জন্য ঘরে বানানো শুকনো পপকর্ন খেতেন সামি।

সপ্তাহে ৬ দিন শক্তি প্রশিক্ষণ ও কার্ডিও অনুশীলন করতেন সামি। গড়ে প্রতি মাসে প্রায় ১০ কেজি করে ওজন ঝরান। বর্তমানে তার ওজন ৬৫ কেজি।

নিয়ম মেনেই জীবনযাপন করছেন জনপ্রিয় এই সঙ্গীত শিল্পী। সামান্য ভুলে যেন ওজন না বাড়ে সেদিকেও সতর্ক থাকেন সুরের পাখি আদনান সামি।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া ও ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন