ক্রিটিকস

হিরো আলমকে থামানোর উপায় 

বেশ কয়েক বছর যাবত প্রায়ই আলোচনার কেন্দ্রে চলে আসছেন বগুড়ার ছেলে হিরো আলম। সারাবছর আলোচনায় থাকার জন্য তিনি অভিনয়, নাচ-গান থেকে শুরু করে রাজনীতি পর্যন্ত করেছেন।

তিনি টাইটানিকের গান গেয়েছেন, শ্রীলঙ্কান শিল্পীর গাওয়া বিখ্যাত গান-‘মানেকে মাগে হিতে’ গেয়েছেন, আরবের জোব্বা পরে গান গেয়েছেন, এমনকি তার হাত থেকে নিস্তার পাননি স্বয়ং রবীন্দ্রনাথও।

রবীন্দ্রসঙ্গীত গাওয়ার পর কমেন্টবক্সে দর্শকরা তাকে সমালোচনায় ধুয়ে দিয়েছে। বাধ্য হয়ে তিনি বলেছেন, তিনি আর কখনো রবীন্দ্র সঙ্গীত গাইবেন না।

অনেকের ধারণা তিনি সমালোচিত হওয়ার জন্য ইচ্ছে করেই এসব করেন। ইউটিউব ফেসবুকে ভিউ, রিচ বাড়ানোর জন্য তাকে সবসময় আলোচনায় থাকতে হয়। সমালোচনায় থাকার জন্য তিনি নিজেকে অপমানিত করতেও দ্বিধা করেন না।

তবে এতো বিতর্কের মাঝেও যে বিতর্কটি জোরালো হয়ে উঠেছে সেটি হচ্ছে, তিনি বাংলাদেশের গান বা শিল্পের মানকে এতোটা নিচে নামানোর অধিকার রাখেন কিনা।

সাধারণ মানুষ বলছেন, বাংলাদেশের সিনেমা-নাটক বা গানের যে স্ট্যান্ডার্ড রয়েছে হিরো আলম সেটিকে আরো নিচে নামিয়ে আনছেন এবং বিশ্বের মানুষের কছে বাংলাদেশের সম্মানকে খাটো করছেন।

শুধু তাই নয়, বিশ্বের কোন প্রান্ত থেকে যদি বাংলাদেশের হিরো লিখে নেটে সার্চ দেয় তাহলে শুভ, সিয়াম বা রিয়াজকে দেখা যাবে না। প্রথমেই দেখা যাবে হিরো আলমকে। এটি বলছে গুগলের অ্যালগারিদম, যা বাংলাদেশের জন্য নেতিবাচক।

তার প্রচারিত ভিডিও’র কমেন্ট সেকশনে একটি পক্ষ বলার চেষ্টা করছেন, একজন ব্যক্তি তার পছন্দমতো গান গাইতে বা অভিনয় করতে পারেন। নাগরিক হিসেবে তার এই অধিকার রয়েছে।

যখন অধিকারের প্রশ্ন আসছে তখন হিরো আলমকে থামানোর কোন কায়দা নেই। তবে দর্শকরা চাইলে একটি কৌশলের মাধ্যমে নিজের অধিকার বজায় রাখতে পারেন । সেটি হলো ইগনোর বা এড়িয়ে যাওয়ার কৌশল।

এ ক্ষেত্রে ফ্রান্সের একটি উদাহরণ কাজে লাগতে পারে। ফ্রান্স দেশটিতে কোনও সেন্সর বোর্ড নেই। দর্শকই সেখানকার সেন্সর বোর্ড। দর্শকরা একটি সিনেমা দেখে ছবিটি মূল্যায়ণ করে। দর্শকদের ভালো লাগলে সিনেমা হিট হয়, খারাপ লাগলে ফ্লপ হয়। দর্শকই এখানে চুড়ান্ত বিচারক।

কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ ফ্রান্সের মতো নিজেরাই নিজেদের হিরো বাছাই করবেন না হিরো আলমই দেশের হিরো থাকবেন তা এখন বিবেচনাধীন।

দেখা যাক তারা কি সিদ্ধান্ত নেয়। অপেক্ষা করা ছাড়া এখন এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাচ্ছে না।

উল্লেখ্য, হিরো আলম এর আসল নাম আশরাফুল আলম। কমেডি ভিডিও কনটেন্ট বানিয়ে তিনি সাধারণ দর্শকদের মধ্যে পরিচিতি পান।

তার বাড়ি বগুড়ায়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে সমালোচনার ঝড় তুলেন তিনি। ইতিমধ্যে পাঁচটি সিনেমা বানিয়েছেন তিনি।

লেখক: সাইফ নাসির, সাংবাদিক ও কলামিস্ট।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন

সৌদি-বাহারাইন সেতুতে লাখো মানুষ আসে কিন্তু নাট বল্টু…

এটিই একমাত্র সৌদি আরব আর বাহরাইন এই দুই দেশকে স্থলপথে […]

যেভাবে ক্ষমতা ছেড়েছিলেন পাকিস্তানের ২২ প্রধানমন্ত্রী

আফনান জাহান: চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যেই নতুন করে আলোচনায় উঠে […]