সাহিত্য

লং ডিসটেন্স রিলেশনশিপ-১

লং ডিসটেন্স রিলেশনশিপ এর নাম শুনেই মুখের দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে ছিলেন অফিসের এক কলিগ। বললেন, প্রথম প্রথম সবকিছু ঠিকঠাকই থাকবে, এরপর দেখবি সবই কেটে গিয়েছে।

কথায় আছে না, আউট অফ সাইট আউট অফ মাইন্ড ।

বিশাল বড় এই বিল্ডিং এর দ্বিতীয় তলায় আমার অফিস। দুপুরের লাঞ্চের পরে মাঝে মাঝে জানালার ধারে

এসে দাড়িয়ে দেখতে পাই একটি ছেলে ও একটি মেয়ে পাশাপাশি হেঁটে কি যেন খুব আনমনে গল্প করছে।

রাগ হয় ভীষণ। মনে হয় এটা তো আমার সাথে ও হতে পারত? হাঁটা তো দূরের কথা, এই ৪/৫মাসে দেখা ও হয়নি কোনদিন। ঠিক মনে করতে পারি না কখন কিভাবে কোন মুহূর্তটাতে আমাদের এই রিলেশনশিপ শুরু হয়েছিল!

নাহ্ এটাকে ঠিক এ রিলেশনশিপ বলা যায় না! বরং বলতে পারি আমরা দু’জন-দু’জনের প্রতিদিনের অভ্যাস।

না আমাদের কোনোদিন, সিনেমার গল্পের মত একে অন্যের দিকে তাকিয়ে গল্প করা হয়নি। কখনো চোখের দিকে তাকিয়ে বলতে পারিনি, “ভালোবাসি “!

কখনো তার স্পর্শ অনুভব করতে পারিনি। পারিনি হয়তো তাকে ভালোবাসার অনুভূতির কথা ব্যক্ত করতে!ওই ভিডিও কলের দিকে তাকিয়ে আমাদের দিন কেটে যায়।

বড্ড ইচ্ছে হয় মাঝে মাঝে আদুরে গলায় একবার বলি,”ঘুম আসছে না মাথায় হাত বুলিয়ে দাও।

“সকালে আধভাঙ্গা ঘুমে তাকে জড়িয়ে ধরে একবার বলি,”আজকে অফিসে না গেলে হয় না? সে বলবে,”

তা কি করে হয়?,সকাল হয়ে গেছে, ওঠো………!

না,না,না,নাহ এগুলো আমাদের কাছে স্বপ্নই বটে!ধ্যাত!লিখতে বসে কি সব যে ভাবছি? তবে আমাদের কাছে কখনো মনে হয় না, একেঅন্যের থেকে অনেক দূরে আছি। মনে হয় এই তো খুব কাছে,ঠিক যতটা কাছে থাকা যায়।

সকালে প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে, ফোনের ওপাশ থেকে শুনতে পাই যেন তার ট্রেনে চলার শব্দ। যতক্ষণ না জানতে পারি সে অফিসে পৌঁছে গিয়েছে, ততক্ষণ কেনো জানি একটা অস্থির অনুভব হতে থাকে। কিন্তু কেন এমন হয়? আমাদের তো কোনদিন দেখা হয়নি!!!!

কখনো কখনো তার অফিসে ফিরে, আমাকে ফোন কলে না পেলে তার যে গম্ভীর একটা কণ্ঠস্বর

একটু পরেই যে, আমি শুনতে পাবো, তা ফোন না করেও বুঝে যাই। যা ভেবেছি ঠিক তাই:

ওমা! মহারাজের সে কি রাগ?

“কেন ফোন ধরলে না?টেনশন হয় না বুঝি?

আবারো বলছি, আমরা কেউ কখনো কারো হাত স্পর্শ করিনি।তবুও কষ্ট অনুভব হয়, একে অন্যের শূন্যতার জায়গা অনুভব করতে পারি। শুনতে-শুনতে আমার সেই কলিগটি বলে উঠলো,

“প্রথম প্রথম সব রিলেশনশিপই এমন থাকে। প্রথম প্রথম পরিচয় হওয়ার পর সব মানুষকেই মনে হয় ভীষণ ভালো। এত সুন্দর সুন্দর কথা বলবে, মনে হবে যেন এতটা ভালো মানুষ হয়তো জীবনে আর কখনো কেউ আসেনি। এটাকে আবেগ বলে,ভালোবাসা নয়।”

শুনতে শুনতে আমি মনে মনে আওড়াতে আওড়াতে বললাম,তাহলে আমরা একে অন্যকে কিভাবে

অনুভব করতে পারি? কেন তার কষ্টে আমার ভেতরের আমিকে অনুভব করতে পারি?

তাহলে এটা কেন হয়,কি জন্য হয়,কিসের জন্য হয়? জানি নাহ!….. তবে হয়……! হয়তো কখনো কখনো দূর থেকেও ভালোবাসা যায়… অনুভব করা

যায় অব্যক্ত অনেক কথা, ভালোবাসি না বলেও ভালোবাসা যায়…!!

 

 

 

 

 

 

 

কলমে: নিপুন দাস, শিক্ষিকা, কবি, লেখিকা, উপস্থাপিকা, আবৃত্তিশিল্পী ও চিত্র শিল্পী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন