অফবিট

বিমানে বসার সিট নীল কেন 

বিমানে ভ্রমনকারীরা একটি বিষয় অবশ্যই লক্ষ্য করেন আর তা হলো সাধারণত বিমানের আসন বা সিটগুলো একই রঙের হয়।

সে যে কোনও কোম্পানি ও যে কোন দেশের বিমান সংস্থার বিমানই হোক না কেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আসন বা মিটগুলোর রং নীল থাকে।

কেন বিমানের সিটের রং নীল রাখা হয় জানেন? আসুন জেনে নেই এর কারণ-

হাজার মাইল উপরে আকাশে বায়ুর চাপ প্রতিহত করে যাত্রীদের এক শহর থেকে আরেক শহরে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে পৌঁছে দেয় বিমান।

বিমান যাত্রা সুবিধাজনক হলেও এর রয়েছে বিপদের আশঙ্কা। সুবিধার মাঝেই অসুবিধা নিহিত থাকে। বিমানেও তার ব্যতিক্রম নয়।

মধ্য আকাশে কোনো রকম দুর্ঘটনা যাতে না ঘটে, তার জন্য নিরাপত্তার সব দিকই গুরুত্ব দেয়া হয়। বিমানের আকার কেমন হবে, কোন ধাতুর উপাদানে তৈরি হবে, এমনকি ভেতরের ছোট ছোট অংশগুলো তৈরির ক্ষেত্রেও বিজ্ঞানকে মাথায় রাখা হয়। সে রকমই একটা হল বিমানের আসন বা সিটের রং।

বিমানে নীল রংয়ের সিট

যাত্রীরা বিমানে উঠলে কমবেশি প্রায় সবাই মানসিক চাপ অনুভব করেন, কারণ বিমান এমন একটা মাধ্যম দিয়ে যায়, যেখানে কোনও কারণে যদি যান্ত্রিক গোলযোগ বা দুর্ঘটনা ঘটে, তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কারও কিছু করার থাকে না।

বিমান যাত্রীদের সেই মানসিক চাপ দূর করাই জন্যই আসন বা সিটের রং নীল করা হয়। কারণ নীল রংকে শান্তির প্রতীক বলা হয়।

তাছাড়া মানসিক অস্থিরতা কমাতে নীল রং বেশ সহায়ক। নীল রংয়ের নিঃসৃত আলো আমাদের হরমোনকে উগ্বেগ কমিয়ে শান্ত রাখে।

এসব কারণে মধ্য আকাশে বিমান যাত্রীদের শান্ত রাখতেই বিমানের আসনের রং সাধারণত নীল করা হয়।

সাদাসহ অন্য যে কোনও গাঢ় রং সহজে নোংরা হয়ে যায় তবে নীল রং সহজে নোংরা হয় না। বিমানের সিটের নীল রং রাখা এটাও একটি কারণ।

তবে সব এয়ারলাইন্স নীল রংয়ের সিট ব্যবহার করে না। কিছু এয়ারলাইন্স কোম্পানি তাদের সিটে লাল রং রাখে। বিশ্বের অধিকাংশ বিমান কোম্পানি নীল রংই ব্যবহার করে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন