সাহিত্য

বড় অবেলায় এলে 

বড় অবেলায় এলে

 

বেশ তো ছিলাম -হঠাৎ করে বল কেন এলে ;

কালো চাদরে ঢাকা মেঘকে-

চাঁদের শুভ্রতায় জ্বেলে দিয়ে

আবার ফিরে গেলে!

 

হয়তো চলে যাওয়ার জন্যই এসেছিলে,

শুধু শুধু করাঘাত করলে শূন্যতায়!

হতাশার চেয়ারে বেশ তো ছিলাম বসে,

বিবর্ণ সেই চেয়ারকে

 ভালোবাসায় রাঙিয়ে দিয়ে

চিরশূন্য করে আবার চলে গেলে!

 

আমি বোধ হয় কিছুই নই –

না শিউলীর শুভ্রতায় ছুঁয়ে থাকা বাসন্তীর আভা,

না শীতের সকালে ঘাসে জড়িয়ে থাকা শিশির।

 

অথবা নই কোন সন্ধ্যা তারায় জড়িয়ে থাকা স্বপ্নের কোন পথ,

নই চোখ মেলে দেখতে পাওয়া প্রভাতের অবারিত আলোক রশ্মি।

 

আনমনে কথার মোড়কে ছন্দ হারিয়ে হঠাৎ

নিজের পদচিহ্ন অনুসরন করে

এ ঘর ও ঘর হাতড়ে বেড়াই।

 

আমার আমি থেকে ইচ্ছে ঘুড়ি তাই

গতি হারিয়ে ক্রমাগত পাক খেতে থাকে,

শহুরে কিশোরের অদক্ষ হাতের ভুল চালনায়।

 

তারপর একাকী দাড়িয়ে রই –

অস্তমিত গন্তব্যের, শেষ আলোক রেখায়।।

 

আমি বোধ হয় কেউই নই –

না তোমার মাঝ দুপুরের পাশে থাকা ছায়াসঙ্গিনী,

না তোমার আঁধার রাতের একলা ঘরের ঘুমের পরী।

 

অথবা নই তোমার ডায়েরির

ভালোবাসার ছন্দে লেখা কোনো কবিতা

জানি,নই তোমার গীটারের তারে জেগে থাকা সুরের মূর্ছনা।

 

অন্ধকারের অলিগলি হাটতে গিয়ে হঠাৎ

নিজের মনে কি ভেবে যেন, নিজেকেই ফিরে ফিরে চাই।

আমার আমি থেকে তোমার তুমি তাই

ক্রমশ হয়ে যাও অস্পষ্ট থেকে অস্পষ্টতর,

শতায়ু প্রাপ্ত বৃদ্ধের ক্ষীণ কোন উচ্চারণে।

 

তারপর দু’জন দাড়িয়ে রই –

অভিন্ন পৃথিবীর ভিন্ন দুই মানচিত্রে ।।

অকাতরেই তুমি বুঝিয়ে দিলে আজ না হয় কাল-

হারিয়ে যাবে একদিন,

প্রিয় কোন মানুষের সন্ধানে

আমার আমিকে খুঁজে পাবে সেথায়!

 

তবুও মনে- রেখো না কোন অভিযোগ,

না রেখো কোন অভিমান,

সন্ধ্যার ক্লান্ত আত্নসমর্পণই সব নয়।

রাত্রির গভীরতায়ও লুকিয়ে থাকে কিছু গল্প!

যদি না ই বা আসি ফিরে,

তবে জেনে নিয়ো –

আমি কখনোই ছিলাম না এই ধরায়।

 

তোমার অভিমানী চোখের কোনায়

হয়তো ছিলাম উড়ে আসা মেঘ,

ছুয়ে না দিতে পারার সেই ব্যর্থতায়

আমিই পুড়ে মরছি প্রতিটি প্রহর।

 

তবুও বলে যাচ্ছি আবার

মনে রেখো না কোন অভিযোগ,

রেখো না কোন অভিমান,

প্রাপ্তির হিসেবের পূর্ণতাই সব নয়।

 

ছুটে চলা পথের ধূলোকণায়ও থাকে কিছু গল্প,

অদেখা স্বপ্নই হয়ে রয়।

এমনই এক অবেলায় তুমি এলে

ক্ষণিক সময়ের রঙের আলোয়

 রাঙিয়ে না-ই বা দিতে?

 

ভালোবেসেছিলাম বলে কোন শব্দ বুঝি

আমার ডিকশনারিতে নেই,

ভালোবেসেছিলাম,ভালোবাসি,ভালোবেসেই যাব,

হয়তো থাকবে না কোন আর নতুন ভোরের অপেক্ষা,

তবুও তুমি ভালো থেকো-

শূন্য আমি বিশালতার আকাশে

শূন্যই পড়ে রব!

বড় অবেলায় এলে তুমি,

এমনই এক অবেলায় তুমি এলে।

 

কলমে: নিপুন দাস, শিক্ষিকা, কবি, লেখিকা, উপস্থাপিকা, আবৃত্তিশিল্পী ও চিত্র শিল্পী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন