রিলিজিয়ন

পবিত্র মক্কায় খলিফা ওসমানের শাসনামলের শিলালিপির সন্ধান

ইসলামের তৃতীয় খলিফা হজরত ওসমান বিন আফফান রা:-এর শাসনামলের ইসলামিক প্রত্নতাত্ত্বিক শিলালিপির সন্ধান পাওয়া গেছে।

সৌদি আরবের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য কর্তৃপক্ষ এই শিলালিপি আবিষ্কারের কথা জানিয়েছে। সৌদি সরকারের এমন খবর বিশ্বের নানান প্রান্তে থাকা মুসলিমদের এই বিষয়ে জানার আগ্রহ বাড়িয়ে দিয়েছে।

সৌদির হেরিটেজ কর্তৃপক্ষ এক টুইটার বার্তায় এই শিলালিপি আবিষ্কারের দাবি করে। আবিস্কৃত শিলালিপিটি ১৪১৯ বছরের পুরোনো বলেও দাবি করা হয় টুইটে। যা ইসলামের তৃতীয় খলিফার যুগের বলে ধারণা করছেন গবেষকরা।

সৌদি আরবের পশ্চিমাঞ্চলে মক্কা মুকাররামার কাসর আল-আলিয়ায় প্রত্নতাত্ত্বিক এই শিলালিপির সন্ধান পান গবেষকরা। এই স্থানটি সরকারি হিসেবে জাতীয় পুরাকীর্তি নিদর্শন হিসাবে নথিভুক্ত আছে।

মুসলিম জাহানের তীর্থস্থান পবিত্র কাবা শরীফ

সৌদির গণমাধ্যম আল আরাবিয়া জানায়, সৌদির হেরিটেজ সংশ্লিষ্টরা জানান শিলালিপিটি তারা নথিভুক্ত করেছেন। মক্কা পুরো মুসলিম বিশ্বের তীর্থস্থান।

এই শিলালিপিতে আরবি বর্ণমালায় বাক্যগুলোর সাথে প্রথম যুগের আরবি লেখার অনেকটাই মিল পাওয়া যায়। সেখানে খোদাই করা হরফগুলোতে কোনো নোকতা নেই।

শিলালিপিটির প্রথম লাইনে ‘জুহির’ নামে অস্পষ্ট একটি শব্দ পাওয়া যায়, যার দ্বারা এটি ইসলামের তৃতীয় খলিফা ও প্রথম যুগের বলে চিহ্নিত করেন গবেষকরা।

‘আমি জুহাইর সৃষ্টিকর্তাকে বিশ্বাস করি। আমাকে ২৪ হিজরিতে ওসমান ইবনে আফফান নির্দেশ দিয়েছিলেন’ – সেখানে পাওয়া বাক্য থেকে অনেকটা এরকমই কিছু বোঝা গেছে বলে জানান গবেষকরা।

প্রাপ্ত শিলালিপিটিতে লেখা বাক্য খলিফা ওসমান রা:-এর খেলাফত গ্রহণের পরের হওয়ার কারণে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ইসলামি শিলালিপির তৃতীয় প্রাচীনতম একটি পাথরের দলিল বলে জানা গেছে।

পাখির চোখে সৌদি আরবের মক্কা নগরী

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম গালফ নিউজের এক প্রতিবেদনেও ১৪১৯ বছরের পুরনো ইসলামি শিলালিপি সৌদি আরব আবিষ্কার করেছে সংবাদ প্রকাশ করে।

সৌদির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) বরাত দিয়ে গালফ নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে শিলালিপিটি খলিফায়ে রাশিদুনের একজন এবং ইসলামের তৃতীয় খলিফা ওসমান বিন আফফানের সময়কার।

এই ইসলামী শিলালিপিটি ২৪ হিজরী সালের। পবিত্র মক্কার ওলায়া প্রাসাদের সীমানার মধ্যে পুরাকীর্তি ও ঐতিহ্যের প্রতি আগ্রহী একদল লোকের মাধ্যমে এই ইসলামি শিলালিপিটি আবিষ্কৃত হয়েছে।

এর মাধ্যমে ইসলামের ইতিহাসের শুরুর দিকের বড় ঘটনা ও তথ্য উঠে আসবে বলে দুবাইয়ের গালফ নিউজ সৌদির বরাত দিয়ে তাদের প্রতিবেদনে  উল্লেখ করেছে।

১৪১৯ বছরের পুরনো এই ইসলামি শিলালিপিকে সাম্প্রতিককালের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক আবিষ্কারগুলোর একটি বলে বিবেচনা করছেন গবেষকরা।

২৩ হিজরিতে ইয়ানবু আল নাখলে সালামাহ শিলালিপি এবং আল উলা গভর্নরেটের (২৪ হিজরি) জুহাইর শিলালিপির পর এটি তৃতীয় প্রাচীনতম শিলা নথি।

সৌদি আরবের প্রাপ্ত শিলালিপি সমূহ

সৌদির হেরিটেজ কর্তৃপক্ষের সুরক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. নায়েফ আল কানৌরে অধীনে প্রত্নতাত্ত্বিক অধ্যয়নের মাধ্যমে প্রাপ্ত শিলালিপির পাঠোদ্ধার করা হয়েছে।

পবিত্র মক্কায় আবিষ্কৃত এই শিলালিপিটি আল উলা গভর্নরেটের জুহাইর শিলালিপির বিষয়বস্তুর অনুরূপ বলে এসপিএর বরাত দিয়ে জানায় গালফ নিউজ।

ওই শিলালিপিতে লেখক খলিফা ওমর ইবনে খাত্তাবের ইন্তেকালের সময়টি নথিভুক্ত করেছিলেন। অর্থাৎ তখন ইসলামের তৃতীয় খলিফা ওসমান বিন আফফানের শাসনামল ছিল।

বিশ্বের অন্যনা দেশের মুসলিমদের মতো বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরাও বেশ আগ্রহ নিয়ে খফিফা ওসমানের শাসনামলের শিলালিপির খবর পড়েছে। দেশের প্রতিটি দৈনিক ও অনলাইন ভার্সনে বেশ গুরুত্ব দিয়ে সংবাদটি প্রকাশ করেছে।

তথ্যসূত্র : আল আরাবিয়া ও গালফ নিউজ

Leave a Reply

Your email address will not be published.