লাইফ স্টাইল

দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর ঢাকা

বিশ্বের ৪০০টিরও বেশি শহরের দুই শতাধিক পণ্য ও সেবার মূল্যের ভিত্তিতে চালানো নতুন এক জরিপে সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকা ২৯ জুন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কভিত্তিক প্রতিষ্ঠান মার্সা।

বিদেশি কর্মীদের বসবাসের জন্য দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা। মার্সার ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় এমনটাই উঠে এসেছে।

মার্সারের ‘কস্ট অব লিভিং- ২০২২’ জরিপে প্রবাসী কর্মীদের জন্য বিশ্বের ৯৮তম ব্যয়বহুল শহর নির্বাচিত হয়েছে ঢাকা। ২০২১ সালে ঢাকার অবস্থান ছিল ৪০তম।

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর ১৮১তম, কাতারের দোহা ১৩৩তম, সৌদি আরবের জেদ্দা ১১১তম, কানাডার ভ্যানকুভার ১০৮তম, থাইল্যান্ডের ব্যাংকক ১০৬তম এবং অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরা রয়েছে ১০৪তম অবস্থানে।

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর হংকং এর রাতের দৃশ্যপট 

এ বছর মার্সার বিশ্বের ৪০০টিরও বেশি শহরে জরিপ পরিচালনা করে ২২৭টি শহরের সূচক তৈরি করেছে।

আবাসন, পরিবহন, খাদ্য, পোশাক, গৃহস্থলি পণ্য-সামগ্রী এবং বিনোদনসহ প্রত্যেকটি শহরের দুই শতাধিক পণ্য এবং সেবার তুলনামূলক ব্যয়ের নিমিত্তে সূচকটি তৈরি করেছে মার্সা।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরকে সমস্ত তুলনার জন্য ভিত্তি শহর হিসেবে ধরা হয়েছিল। আর প্রত্যেকটি শহরে প্রবাসীদের জীবন-যাপনের ব্যয় মার্কিন ডলারের বিপরীতে তুলনা করা হয়।

সূচকে দক্ষিণ এশিয়ার ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় ভারতের মুম্বাই ১২৭তম, নয়াদিল্লি ১৫৫তম, চেন্নাই ১৭৭তম ও বেঙ্গালুরু ১৭৮তম অবস্থানে রয়েছে।

ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী শহর মুম্বাই

শ্রীলঙ্কার কলম্বোর অবস্থান ১৮৩তম। এরপরই ভারতের হায়দরাবাদ ১৯২তম, পুনে ২০১তম এবং কলকাতা ২০৩তম অবস্থানে রয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে কম ব্যয়বহুল শহর নির্বাচিত হয়েছে পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ ও করাচি শহর। বৈশ্বিক হিসেবে এই শহর দুটির অব্স্থান যথাক্রমে ২২৪ এবং ২২৩তম।

সূচকে প্রবাসীদের জন্য সবচেয়ে সস্তা তিন শহর হচ্ছে তুরস্কের আঙ্কারা, কিরগিজস্তানের বিশকেক ও তাজিকিস্তানের দুশানবে।

অন্যদিকে, বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর এর তালিকায় প্রথম হংকং। দ্বিতীয়, তৃতীয় চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে আছে যথাক্রমে সুইজারল্যান্ডের জুরিখ, জেনেভা বাসেল ও বার্ন শহর।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন