ভিউস

কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে বিউটি বোর্ডিং

জরাজীর্ণ একটা ভবন। নেই চাকচিক্য বা আধুনিকতার ছোঁয়া। তবে আছে ঐতিহ্য আছে ইতিহাস। তেমনই এক ঐতিহাসিক কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে পুরান ঢাকার বিউটি বোর্ডিং। ব্রিটিশ আমল থেকেই সাহিত্য ও রাজনীতির সূতিকাগার ছিল এই স্থাপনাটি।

এককালে বাংলাবাজার প্যারিদাস রোডের শিরিশ দাস রোডে অবস্থিত এই বোর্ডিং এ বসে নিজেদের সেরা কাজগুলো করেছিলেন দেশের বিখ্যাতজনরা।

বাংলাদেশের প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার আব্দুল জব্বার খান এখানে বসেই লিখেছিলেন দেশের প্রথম স্ববাক চলচ্চিত্র মুখ ও মুখোশের পান্ডুলিপি। সৈয়দ শামসুল হক এখানে বসেই সাহিত্য চর্চা করেছেন দিনের পর দিন।

বাংলার বিখ্যাত কবি শহিদ কাদরী এখানেই বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতেন। বিউটি বোর্ডিং হয়ে উঠেছিল মননশীল মানুষের মিলন মেলার স্থান।

কবি নির্মলেন্দু গুন এখানে প্রায় ৫ বছর বসবাস করেছেন। জুয়েল আইচের যাদুর সূচনা হয়েছিল এখানে বসেই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই উঠোনে বসেই বহু সভা সেমিনার করেছেন।

কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে পুরান ঢাকার বিউটি বোর্ডিং

নেতাজী সুভাস চন্দ্র বোসের মতো প্রখ্যাত রাজনীতিবিদের আনাগোনাও ছিল এখানে।

পল্লী কবি জসিম উদ্দিন, কবি শামসুর রহমান, আল মাহমুদ ও আহমেদ ছফাসহ বহু কবি সাহিত্যিক বিউটি বোর্ডিংয়ের চায়ের কাপে জমপেশ আড্ডা জমিয়েছিলেন।

মননশীল লোকেদের আড্ডাস্থল ছিল বলে এখানে নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল পাকিস্তান সেনা বাহিনী। বোর্ডিং এর তৎকালীন কর্ণধার প্রহ্লাদ সাহাসহ ১৭ জনকে নির্মমভাবে হত্যা করে এখানে ক্যাম্প বানায় পাক হানাদাররা।

মূলত এটি ছিল জমিদার সুধির সাহার বাড়ি। ৪৭ সালে দেশ ভাগের পর ব্যবসায়ী নালিনী মোহন সাহা বাড়িটি ভাড়া নিয়ে রেঁস্তোরাসহ একটি বোর্ডিং চালু করেন। নালিনী সাহার মেয়ে বিউটির নাম অনুসারেই নাম রাখা হয় বিউটি বোর্ডিং।

এই বোর্ডিং এ থাকার কক্ষ আছে ২৫ টি। সেখানে তেমন লোকজন না এলেও রেঁস্তোরাটি বেশ জমজমাট। এখানে আসা ব্যক্তিরা যেন অতীতকেই খুঁজে পেতে চায় বিউটি বোর্ডিং এর চায়ের কাপে।

কলমে: সাইফ নাসির, লেখক, সাংবাদিক ও কলামিস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরও পড়ুন

সিলেট-সুনামগঞ্জ বানভাসীর পাশে তিতাস-দাউদকান্দিবাসী

স্মরণকালেল সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যার কবলে পুণ্যভূমি খ্যাত সিলেট ও সুনামগঞ্জের […]

বিশ্ব গণমাধ্যমে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের খবর

আট বছরের অপেক্ষার অবসান ঘটেছে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় তিন কোটি […]