এমপি হয়েও দরিদ্র বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেন মাশরাফি !

মারিয়াম জাহান: জন্মস্থান নড়াইল হলেও দেশের আলোচিক নাম মাশরাফি। মাশরাফির ছোট বেলার বন্ধু রবি দাস নড়াইল শহরের মোড়ে বটগাছের নিচে বসে মুচির কাজ করেন। দেশ সেরা ক্রিকেটার হওয়ার পরও নিজ এলাকায় গেলেই সেই দোকানে গিয়ে সময় দিতেন মাশরাফি।

এমনকি সংসদ সদস্য হওয়ার পরও সেই চিত্রটি এখনো বদলায়নি। রবি দাসের দোকানে এসে নিয়মিত সময় কাটান নড়াইল এক্সপ্রেস।

অন্যদিকে, পরিচ্ছন্নতাকর্মী সুমন দাসও তার বন্ধু। সুমন স্থানীয় একটি অফিসে পরিচ্ছন্নতার কাজ করেন। নড়াইলে গেলেই বন্ধু সুমনের সাথেও দেখা করেন সাংসদ মাশরাফি। এমন কি দরিদ্র সুমন দাসের যে কোন সমস্যা সমাধানেও সহায়তা করেন মাশরাফি।

অতি সম্প্রতি আবারও নিজ নির্বাচনী এলাকায় যান তিনি। হাসপাতাল পরিদর্শন, পুলিশের আর্চারি প্রতিযোগিতায় হাজির হওয়াসহ এমপি হিসেবে আরও অনেক কর্মসূচি ছিল তার।

তবে যত কিছুই থাক, ভুল হয়নি বন্ধু রবি দাসের দোকানে উপস্থিত হওয়ার বিষয়টি। বটগাছের নিচে জুতা সেলাই করছেন রবি, চার পাশে ছড়ানো পুরনো, ছেঁড়া জুতা। তার পাশে বসেই বন্ধুর সঙ্গে গল্পে মত্ত হওয়ার দৃশ্য ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

এমন দৃ্শ্য বাংলাদেশের ইতিহাসে একেবারে বিরল না হলেও খুবই কম। তার মতো করে জনগণের এতটা পাশে এসে দাঁড়ানো, নিজ দায়িত্বে সরেজমিন এসে সুযোগ-সুবিধার খোঁজ-খবর নেয়ার মতো সাংসদ বাংলাদেশে কমই দেখা যায়।

একজন জুতা সেলাই করে অন্যজন বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রভাবশালীদের একজন,অথচ কি নিখাঁদ তাদের বন্ধুত্ব। হৃদয়ের গভীরে ধারণ না করলে এমনটা করা যায় না। আর তাই ফেসবুক জুড়ে সকলের মন্তব্য “বেঁচে থাকুক বন্ধুত্ব”।

মাশরাফির এমন বন্ধুতার মূল্যায়নের দৃশ্য দেখে সামাজিক মাধ্যমে বিশেষ করে ফেসবুকে প্রশংসা করছেন নেটিজেনরা। জাত ধর্ম নির্বেশেষে সবাইকে বুকে টেনে নেন মাশরাফি যা তার সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডে প্রকাশ পাচ্ছে।

Leave a Reply